ভারতীয় ক্রিকেটের অন্যতম সেরা ম্যাচ উইনার তিনি। কিন্তু জাতীয় দলের বাইরে প্রায় ১৭ মাস। আপাতত দল নেই আইপিএলেও। সদ্য তাঁকে ছেড়ে দিয়েছে গতবারের দল কিংস ইলেভেন পঞ্জাব। ঘরোয়া একদিবসীয় টুর্নামেন্ট বিজয় হাজারে ট্রফিতে খুব খারাপ না খেললেও রাজ্য দলে জায়গা হারাতে হয়েছে তরুণ রক্তের কাছে। তবুও লড়াই তো তাঁর রক্তে। তাই আরও একবার জাতীয় দলে ফেরার লক্ষ্যে নিজের রাজ্য দল পঞ্জাবের হয়ে রঞ্জি ট্রফির ম্যাচে মাঠে নামতে চলেছেন যুবরাজ সিংহ।

চমৎকার ফর্মে থাকা পঞ্জাবের মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান শুভমন গিল ভারতীয় ‘এ’ দলের হয়ে বিদেশ সফরে চলে যাওয়ায়, তাঁর জায়গায় হঠাৎই রাজ্য দলে ডাক পেয়েছেন যুবি। রঞ্জি ট্রফির চতুর্থ রাউন্ডের পরবর্তী তিনটি ম্যাচের জন্য আপাতত তাঁকে নির্বাচন করা হয়েছে বলে পঞ্জাব ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের তরফে জানানো হয়েছে। প্রথম দু’টি ম্যাচ থেকে একটি পয়েন্টও না পাওয়ায় এ বারে পঞ্জাব দলের রঞ্জি অভিযানের শুরুটা একদমই ভাল হয়নি। যুবরাজের অন্তর্ভুক্তি পঞ্জাব দলে অভিজ্ঞতার অভাব ঢাকতেও সাহায্য করবে বলেও মনে করছে বিশেষজ্ঞ মহল।
২৮ নভেম্বর দিল্লির বিরুদ্ধে তাদের ঘরের মাঠ ফিরোজ শা কোটলা স্টেডিয়ামে খেলতে নামবে পঞ্জাব। ফিরোজ শা কোটলা যুবরাজের খুবই পয়া মাঠ। এই মাঠেই রঞ্জি ট্রফির ম্যাচে বরোদার বিরুদ্ধে তাঁর দুর্দান্ত দ্বিশত রান আবার জাতীয় দলের দরজা খুলে দিয়েছিল তাঁর সামনে।

পরের বছরেই বিশ্বকাপ। একমাত্র অম্বাতী রায়ুডু ছাড়া ভারতীয় দলের মিডল অর্ডার এখনও সে ভাবে ধারাবাহিকতা দেখাতে পারছে না। এছাড়াও সামনেই আইপিএলের নিলাম। তাই নির্বাচকদের কাছে নিজেকে প্রমাণ করতে এবং ১৮ ডিসেম্বরের আগে ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগের রিক্রুটারদের ‘গুড বুক’-এ নাম লেখাতে এই তিনটি ম্যাচই ভরসা আইপিএলে আপাতত দলহীন যুবরাজের।
মারণ ব্যাধিকে উড়িয়ে গ্যালারিতে ফেলেছেন তিনি। এখন ক্রিকেটের মূল স্রোতে ফিরতে তাঁর এই নতুন লড়াইতে কতটা সফল হন তিনি, সেটাই এখন দেখার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here