প্লাস্টিক বর্জ্যকে জ্বালানি তেলে রূপান্তরের কৌশল আপাতত বিশ্বজুড়ে আশার আলোর দিশা দেখাচ্ছে। দূষণ প্রতিরোধ ও ক্রমবর্ধমান তরল জ্বালানির চাহিদা মেটাতে ইতোমধ্যে আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্র, জাপান, জার্মানি, ভারতে প্ল্যান্ট স্থাপনের মাধ্যমে বাণিজ্যিকভাবে (প্লাস্টিক বর্জ্য থেকে) তৈরি হচ্ছে ডিজেল ও কেরোসিন। প্রতি বছর দেশে যে বিপুল পরিমাণ প্লাস্টিক বর্জ্য তৈরি হচ্ছে, তা থেকে উৎপাদিত জ্বালানি তেল গৃহস্থালি ছাড়াও ব্যবহার করা যাবে কারখানায়।পাশাপাশি পরিবেশ দূষণের ভয়াবহতা থেকেমুক্তি পাওয়া সম্ভব হবে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে বাণিজ্যিকভাবে উন্নতমানের জ্বালানি তেল তৈরির ব্যাপক সম্ভাবনার কথা বললেন আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক ওয়াস্ট টেকনোলজিস এলএলসির প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী ড. মইনউদ্দিন সরকার ও সহপ্রতিষ্ঠাতা এবং নির্বাহী পরিচালক ড. আনজুমান সেলী। ‘ন্যাচারাল স্টেট রিসার্চ ইন করপোরেশন’(এনএসআর) সংস্থার মাধ্যমে নিউইয়র্কে ২০১০ সাল থেকে এই বিজ্ঞানি দম্পতি পরিবেশবান্ধব ও সালফারবিহীন উন্নতমানের এনএসআর ফুয়েল (ডিজেল, কেরোসিন, এলপিজি) উৎপাদন করে আসছেন। বর্তমানে ২০ থেকে ৩০ কোটি ব্যারেলতেল উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে তাঁরা কাজ করছেন।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here